আজ - বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
Bangla Edition

চাঁদে নতুন রেকর্ড গড়লো ভারত


লেখক: বুলবুল আহমেদ
প্রকাশিত হয়েছে: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

চাঁদে পদার্পণ এর মাধ্যমে নতুন রেকর্ড গড়লো ভারত। চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পদার্পণ করে ভারতের নতুন রেকর্ড। বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করলো ভারত।


চাঁদে নতুন রেকর্ড গড়লো ভারত | Image Source: organiser

ভারতের আগে চাঁদে অন্যান্য দেশ নিজেরা সফলভাবে অবতরণ করলেও ভারত এক অবিশ্বাস্য নতুন রেকর্ড গড়লো। যে ব্যাপারে ভারতের আগে অন্যান্য দেশের বিজ্ঞানীরা অনেকটাই অজানা রয়ে গেছেন। গত চার বছরের অক্লান্ত পরিশ্রম শেষে ভারতের ISRO গবেষণা কেন্দ্রের গবেষকরা অবশেষে চন্দ্রযান-৩ দ্বারা চাঁদে অবতরণ কার্য সম্পাদন করে।

এর আগে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে কোন দেশের গবেষকরা কোন গবেষণা কার্য চালাতে পারেনি এবং সেখানে পৌঁছাতেই পারেনি। সর্বপ্রথম ভারত চাঁদের দক্ষিণ মেরু আবিষ্কারের কৃতিত্ব অর্জন করেছে। এতে করে ভারত মহাকাশ বিজ্ঞানী নতুন একটি ইতিহাসও গড়েছে।চাঁদে অবতরণের দিক দিয়ে ভারতের স্থান চতুর্থ। আমেরিকার রাশিয়া এবং চীনের পর ইতিহাসের পাতায় নতুন করে নাম লেখালো ভারত।

ভারত অনেক আগে থেকে চাঁদে নিজেদের আগমন নিয়ে অনেকটাই আশাবাদী ছিল। ভারতের ISRO গবেষণা কেন্দ্রে প্রায় এক হাজার ইঞ্জিনিয়ার এবং গবেষক দল নিয়ে প্রায় চার বছর যাবত চন্দ্র অভিযান চালিয়ে আসছে ভারতের এই গবেষণা কেন্দ্র। অবশেষে ২০২৩ সালে এই সফলতা পেল ভারত এবং বিশ্বের কাছে নিজেদের পরিচিতি তুলে ধরল ভারত। বিক্রম চাঁদের মাটিতে অবতরণের পর পরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বার্তা প্রেরণ করা হয়।

সেই সময় চন্দ্রযান-৩ এর পক্ষ থেকে বলা হয় ' ভারত আমি আমার গন্তব্যে পৌঁছে গেছি'। ভারতের বেঙ্গালুরু তে অবস্থিত মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরোতে ঠিক সেই সময় চলছিল উল্লাস ও উদ্দীপনা। সবাই করতালি দিয়ে এবং কোলাকুলি করার মাধ্যমে এই আনন্দ ভাগাভাগি করে নিচ্ছিল সেই সময়। সেই সময় ইউটিউবে ঈসরোর ভিতরের সকল বিষয়াবলি সরাসরি সম্প্রচার করা হচ্ছিল।

সেই সময় চন্দ্রযান -৩ এর ল্যান্ডার বিক্রম যখন চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে ল্যান্ড করছিল সে সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজের হাতে ভারতের জাতীয় পতাকা তুলে ধরে উদযাপন করছিলেন সে আনন্দঘন মুহূর্ত।চন্দ্রযান -৩ চাঁদে পদার্পণ করার আগেই ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি একটা সংবাদ প্রকাশ করে।

সংবাদটিতে উল্লেখ করে বলা হয়েছে ভোর ৫:৪৫ নাগাদ চন্দ্রযান -৩ এর ল্যান্ডার চাঁদে পদার্পণ করার কাজ শুরু করবে। এই কাজ সম্পাদিত হতে সর্বমোট ১৯ মিনিট সময় লাগবে। ভোর ৬:০৪ মিনিট নাগাদ চন্দ্রযান -৩ চাঁদে সফলভাবে পদার্পণ করতে পারে বলে জানাই ব্রিটিশ এখনো মাধ্যম।

চতুর্থ দেশ হিসেবে বিশ্বের সেরা দেশগুলোর মধ্যে অর্থাৎ চাঁদ জয় করার ক্ষেত্রে ভারত নাম লেখালো ইতিহাসের পাতায়। কিন্তু এখানে একটি ভিন্নতা পরিলক্ষিত হচ্ছে যা এর আগে কখনো কোন দেশ করতে পারেনি। তাদের দক্ষিণ মেরুতে পদার্পণ করেছে ভারত। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং চীন চাঁদে তাদের গবেষণা কার্য সম্পাদন করে চাঁদ জয় করার কৃতিত্ব অর্জন করলেও চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে কোন দেশ এর আগে কখনো সফলভাবে পদার্পণ করতে পারেনি।

এদিক দিয়ে দেখতে গেলে সর্বপ্রথম চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পদার্পণের কৃতিত্ব অর্জন করল ভারত। যেটি ভারতীয় বিজ্ঞানী এবং গবেষক দলের কাছে অনেক বড় একটি পাওয়া বলে ধারণা করা যাচ্ছে। চাঁদে পদার্পণের আশা নিয়ে বিশ্বের প্রায় অনেক দেশেই গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করা হয়েছে। বাদ নেই বাংলাদেশও। তাদের সর্বপ্রথম পদার্পণ করে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের এই কৃতিত্ব সারা বিশ্ব ছড়িয়ে পড়েছিল।

এক সময় এমন কৃতিত্ব যে ভারত নিজে অর্জন করবে তা হয়তো ভারতের জানাই ছিল না। দীর্ঘ চার বছরের পরিশ্রম এক হাজার ইঞ্জিনিয়ার এবং অসংখ্য গবেষকদের দীর্ঘ প্রচেষ্টায় ইতিহাসের খাতায় বিশ্বের চতুর্থতম দেশ হিসেবে চাঁদে পদার্পণ করে নাম লেখালো ভারত। তবে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে এই প্রথম দেশ হিসেবে নাম লেখানো ভারত।

চাঁদে পদার্পণ করা কোন সহজ বিষয় নয়। শত শত বছর ধরে সারা বিশ্বের বিজ্ঞানীরা এ বিষয় নিয়ে গবেষণা করে আসছে। সারা বিশ্বের বিজ্ঞানীরা গবেষণা করে আসলেও সর্বপ্রথম এই চাঁদে পদার্পনে সমর্থ্য হয় আমেরিকা। এরপর রাশিয়া এবং চীন চাঁদে পদার্পণ করতে সক্ষম হয়। সারা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দিয়ে বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে চাঁদে পদার্পণ করলো ভারত।

ভারতের বেঙ্গালুরুতে অবস্থিত গবেষণা দল প্রায় দীর্ঘ চার বছরের অভিজ্ঞতায় এবং দীর্ঘ প্রচেষ্টায় চন্দ্রযান-৩ দ্বারা বিশ্বের এই নতুন রেকর্ড গড়লো। এর আগেও ভারত চাঁদে পদার্পণের চেষ্টা করলেও সেই বার তারা ব্যর্থ হয়েছিল। কিন্তু এইবার তারা নতুন করে সফলতার মুখ দেখেছে। দীর্ঘ ১৯ মিনিট যাবত চন্দ্রাযান-৩ চাঁদে পদার্পণ এর কাজ খুব সূক্ষ্মভাবে পরিচালনা করে এবং সফলভাবে নিজেকে চাঁদে অবতরণ করে।

এটি শুধু ভারতের অর্জন নয়, চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে পদার্পণ এর ক্ষেত্রে এটি সারা বিশ্বের জয় বলা যেতে পারে। সাম্প্রতিক সময়ে এমন বিষয়গুলো দেখে আমরা অবশ্যই বলতে পারি আমাদের বিশ্ব প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে অনেকটাই এগিয়ে গেছে। সামনের দিনগুলোতে প্রযুক্তির ছোঁয়ায় আমরা আরো বড় বড় বিষয়াবলী সম্পাদন করতে পারব বলে আমারা আশাবাদী। আর সে সকল বিষয় শুধু এখন সময়ের অপেক্ষায় রয়েছে।

ট্যাগ

Chandrayaan-3 চন্দ্রযান-৩ ভারত India চাঁদে নতুন রেকর্ড new record on moon moon first record চাঁদে প্রথম রেকর্ড

এই সম্পর্কিত আরও পড়ুন


মন্তব্য