আজ - বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪
Bangla Edition

জায়েদ খান-সায়ন্তিকা একই হোটেলে রাত্রিযাপন, অতঃপর শুটিং শেষ না করে চলে গেলেন সায়ন্তিকা!


লেখক: বুলবুল আহমেদ
প্রকাশিত হয়েছে: ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ছায়াবাজ সিনেমা শুরু না হতেই শেষ হয়ে গেল। কেন ছায়াবাজ সিনেমার শুটিং শেষ না করে বাংলাদেশ ত্যাগ করলেন নায়িকা সায়ন্তিকা। নায়িকার অভিযোগ নৃত্যশিল্পী তার গায়ে অবাঞ্চিতভাবে হাত দিয়েছিল। কক্সবাজারে একই হোটেলে নায়ক জায়েদ খান ও সায়ন্তিকা অবস্থান করেছেন। নায়িকা সায়ন্তিকা পঞ্চাশ হাজার রুপি ও ড্রেস নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার অভিযোগ।


জায়েদ খান-সায়ন্তিকা একই হোটেলে রাত্রিযাপন, অতঃপর শুটিং শেষ না করে চলে গেলেন সায়ন্তিকা? | Image Source: The DailY Star

টলিউড অভিনেত্রী সায়ন্তিকা ব্যানার্জি বাংলাদেশে এসেছিল ছায়াবাজ সিনেমা করার উদ্দেশ্যে। সিনেমাটিতে নায়ক হিসেবে ছিল বাংলাদেশের বিখ্যাত নায়ক জায়েদ খান এবং তার বিপরীতে অভিনয় করার জন্য এবং নায়িকা হিসেবে সিনেমাটিতে কাজ করার জন্য বাংলাদেশে এসেছিল এই টলিউড অভিনেত্রী।


কিন্তু কি এমন ঘটনা ঘটলো যা সিনেমা শুরু হওয়ার প্রথম মুহূর্তেই নায়িকা বাংলাদেশ ছেড়ে চলে গেল তার নিজ দেশ ভারতে। প্রথমে গুঞ্জন উঠেছিল নায়ক জায়েদ খানের সঙ্গে হয়তো নায়িকা সায়ন্তিকার কোন সমস্যা হওয়ার জন্য এমন ঘটনা ঘটেছে।


কিন্তু পরে তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায় মূলত সিনেমাটির নৃত্যপরিচালক মাইকেল বাবুর সাথে কোন একটি সমস্যার জন্য সায়ন্তিকা রাগ করে বাংলাদেশ ত্যাগ করে তার নিজ দেশ ভারতে চলে যায়। এ ব্যাপারে নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবুর সাথে কথা বলে জানা যায়। সিনেমার একটি গানের শুটিং চলাকালীন সময়ে নৃত্য পরিচালক বাবু নায়িকাকে স্টেপ শেখানোর জন্য ইশারা দিয়ে স্টেপ শেখাচ্ছিলেন।


ঠিক সেই মুহূর্তে নায়িকার গায়ে ভুলবশত টাচ হয়ে যাওয়ায় নায়িকা রেখে যায় এবং তাকে গায়ে হাত দিতে বারণ করে। নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবু আরো জানাই মূলত ডান্স মাস্টার হিসেবে মাইকেল বাবুকে না নিয়ে ভারতের কোন নৃত্য পরিচালককে নেওয়ার জন্য প্রথম থেকেই সিনেমার পরিচালক কে বলে আসছিলেন নায়িকা সায়ন্তিকা ব্যানার্জি। আর সিনেমা শুরুর আগে থেকে সায়ন্তিকা ব্যানার্জি সিনেমার স্পট হিসেবে ভারতের প্রস্তাবনা দিয়ে আসছিলেন।


আর এর আগে আমি বাংলাদেশের অনেক নায়িকাদের সাথে কাজ করেছি তারা আমার বিরুদ্ধে কোনরকমের কোন অভিযোগ আনেনি। আমার হাত ধরার বিষয়টি অভিযোগ হিসেবে তুলে তিনি আসলেই একটি হাস্যকর কাজ করেছেন বলে জানাই নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবু।
অপরদিকে ভারতের একটি গণমাধ্যমকে সায়ন্তিকা অন্যরকম কথা বলে। তার কথা অনুযায়ী শুধু নৃত্য পরিচালক মাইকেল বাবু না তিনি পরিচালক মনিরুল ইসলাম কেও দোষারোপ করেন। তিনি বলেন মনিরুল ইসলাম এমন পরিচালক যিনি কিনা কোন প্ল্যান প্রোগ্রাম ছাড়াই সিনেমাটি পরিচালনা করছিল।


টেকনিক্যাল বিষয়ে নায়িকা অনেকবার পরামর্শ দিলেও সেই ব্যাপারে কোন সাহায্য পাননি এই নায়িকা বলে দাবি করেন তিনি। অপরদিকে সিনেমাটির পরিচালক মনিরুল ইসলাম জানান, নায়িকা সায়ন্তিকার করা সব ধরনের অভিযোগ বানোয়াট এবং যুক্তিহীন। মূলত নায়িকা তার উপরে যে অভিযোগ চাপাচ্ছে তার আসলে কোন মূল্য আছে বলে তিনি মনে করছেন না।


তিনি আরো বলেন একজন নায়িকা ড্রেস চেঞ্জ করার জন্য চার ঘন্টা সময় নেই। অপরদিকে শুটিং ব্যাকআপ হয়ে গেলেও নায়ক এবং নায়িকা রাত্রি যাপন করেছিল কক্সবাজার হোটেলেই। এ সকল বিষয় তিনি বলার পর বলেন, এ সকল বিষয়ে আমি বলতে চেয়েছিলাম না কিন্তু নায়িকার ব্যবহারে এবং আচরণে আমি বলতে বাধ্য হচ্ছি। তিনি আরো বলেন চুক্তির বাহিরে নায়িকা সায়ন্তিকা কে ভারত থেকে ড্রেস নিয়ে আসার জন্য ৫০ হাজার রুপি বারতি দেওয়া হয়েছিল।


তিনি সাথে করে কোন ড্রেস নিয়ে আসেননি বলে জানান এবং এখান থেকে যে সকল ড্রেস তাকে দেওয়া হয়েছিল সেই সকল ড্রেসও তিনি ফেরত না দিয়ে নিয়ে গেছেন বলে জানান সিনেমাটির পরিচালক। এপার বাংলা ও ওপার বাংলা সিনেমা তৈরি হয়ে আসছে অনেক আগে থেকেই। তারই ধারাবাহিকতায় নতুন একটি সিনেমা "ছায়াবাজ" তৈরি হতে যাচ্ছিল ঢালিউডের পর্দায়।


তারই উদ্দেশ্যে ওপার বাংলা থেকে টলিউড অভিনেত্রী সায়ন্তিকা ব্যানার্জিকে নিয়ে আসা হয়েছিল সিনেমাটিতে নায়িকার ভূমিকা পালন করার উদ্দেশ্যে। অপরদিকে সিনেমাটিতে নায়ক হিসেবে ভূমিকা পালন করছিলেন বাংলাদেশের অন্যতম পরিচিত একটি মুখ জায়েদ খান। হাজারো নারীর স্বপ্নের রাজকুমার জায়েদ খান এই সিনেমাটিতে মুখ্য চরিত্র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।


কিন্তু সিনেমা শুরু হতেই যেন সবকিছু শেষ হয়ে গেল। একটি অহেতুক বিষয় নিয়ে সায়ন্তিকা ব্যানার্জি গানের শুটিং শেষ না হতেই বাংলাদেশ ছেড়ে নিজের দেশ ভারতে চলে যান। নায়িকার দাবি ছিল নৃত্য পরিচালক তার সাথে শারীরিক খারাপ আচরণ করায় তিনি মূলত সিনেমা থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নিয়েছেন।


নায়িকার উপরে পরিচালক এবং নৃত্য পরিচালক উভয়েই পাল্টা অভিযোগ জানিয়েছে। এখানে দুই পক্ষই দুই পক্ষের উপরে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ জানালেও এবারেই কি তবে এপার বাংলা ও ওপার বাংলা সিনেমার পরিসমাপ্তি ঘটতে চলেছে? সেটি এখন দেখার বিষয় রয়ে গেল আর সেটি দেখতে এখন প্রয়োজন সময়ের।

ট্যাগ

জায়েদ খান সায়ন্তিকা ছায়াবাজ রাত্রিযাপন শুটিং নৃত্যশিল্পী বাংলাদেশ ভারত Zayed Khan Sayantika Chayabaaz Nightlife Shooting Dancer Bangladesh India Stop shooting

এই সম্পর্কিত আরও পড়ুন


মন্তব্য